কোঃগঞ্জে পুলিশের উপস্থিতিতে প্রবাসীর বাড়ীতে ভাংচুর, লুটপাট, আহত-৩

0
115

কোম্পানীগঞ্জ (নোয়াখালী) প্রতিনিধি :: নোয়াখালীর কোম্পানীগঞ্জ উপজেলায় পুলিশের উপস্থিতিতে প্রবাসীর বাড়ীতে সন্ত্রাসী হামলা, ভাংচুর ও লুটপাটের অভিযোগ পাওয়া গেছে। মঙ্গলবার রাত ১২টায় সিরাজপুর ইউনিয়নের শাহজাদপুর গ্রামে কামলা বাড়ীতে উক্ত ঘটনা ঘটে। হামলার ঘটনায় হামলাকারীদের বিরুদ্ধে মামলা না নিয়ে পুলিশ হামলার শিকার প্রবাসীর বিরুদ্ধে মামলা নিচ্ছে বলে অভিযোগ উঠেছে। এদিকে হামলার সময় সময় সন্ত্রাসীরা বাহরাইন প্রবাসী ইমাম হোসেন রিয়াদকে মারধর করে পুলিশের হাতে তুলে দেয়। সন্ত্রাসীদের হামলায় ৩ জন আহত হয়েছে। আহত স্কুল ছাত্রী বীথিকে(১৪) অচেতন অবস্থায় কোম্পানীগঞ্জ ‍উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করানো হয়েছে। এ ঘটনায় পুলিশের রহস্যজনক ভূমিকায় এলাকায় তোলপাড় সৃষ্টি হয়েছে।

এলাকাবাসী ও প্রত্যক্ষদর্শীরা জানায়, উপজেলার সিরাজপুর ইউনিয়নের দক্ষিণ শাহজাদপুর গ্রামের শাহজাদপুর উচ্চ বিদ্যালয়ের সংলগ্ন একটি দোকানে মঙ্গলবার রাতে পুলিশ উপ-পরিদর্শক মাসুদ কামাল পুলিশ সদস্যসহ অবস্থান করছিল। এ সময় স্থানীয় আওয়ামীলীগ নেতা কবির আহম্মদের নেতৃত্বে মাকসুদ মিয়া, ইকবাল হোসেন, রিয়াজ হোসেন, সোহেল, রিয়াজ, সাইফুল, রবিন, স্বপন, মাকসুদ, ছালা উদ্দিন ও দিদারসহ কয়েকজন সন্ত্রাসী বাহরাইন প্রবাসী ইমাম হোসেন রিয়াদের বাড়ীতে গিয়ে হামলা, ভাংচুর ও লুটপাট চালায়।

হামলাকারীরা ইমাম হোসেন রিয়াদ (২৬), তার বোন শাহজাদপুর উচ্চ বিদ্যালয়ের অষ্টম শ্রেণীর ছাত্রী নুর জাহান আক্তার বীথি (১৪), তার মা বেগম নাজু তাহেরাকে (৪৫) মারধর করে। সন্ত্রাসীরা তাদের ঘর থেকে ১২ ভরি স্বর্ণালঙ্কার, ৩২ হাজার টাকা, ৩টি মোবাইল ফোন ও অন্যান্য সামগ্রী লুটপাট এবং ছিনিয়ে নিয়ে যায়।

আহত বীথির মা বেগম নাজু তাহেরা অভিযোগ করে বলেন, সন্ত্রাসীরা গভীর রাতে তাদের বাড়ীতে হামলা, ভাংচুর, লুটপাট করার পর তার ছেলে প্রবাসী রিয়াদকে মিথ্যা ও সাজানো অপহরণ মামলায় আসামী করার চেষ্টা চালাচ্ছে। এ বিষয়ে রিয়াদের মা বেগম নাজু তাহেরা বাদী হয়ে মামলা দায়েরের প্রস্তুতি নিচ্ছে বলে জানান।

পুলিশ উপ-পরিদর্শক মাসুদ কামালের সাথে এ বিষয়ে জানতে চাইলে তিনি বলেন, রাত ১০টায় কোম্পানীগঞ্জ থানার ওসি তাকে শাহজাদপুরের অপহরণের ঘটনা ঘটেছে বলে ঘটনাস্থলে যেতে বলেন। তাৎক্ষনিক ঘটনাস্থলে পৌছলে স্থানীয় আওয়ামীলীগ নেতারা কথিত অপহৃত রুবেলকে আমার কাছে রেখে দিয়ে তারা আসামী ধরে আনার কথা বলে কামলা বাড়ীতে যায়। হামলা, ভাংচুর, লুটপাটের বিষয়ে আমি

এ বিষয়ে আ’লীগ নেতা কবির আহম্মদের সাথে তার মুঠোফোনে আলাপ করলে তিনি জানান, আমার বিরুদ্ধে আনীত অভিযোগ সত্য নয়। আমি কাউকে কোন নির্দেশ দি নাই। তবে অপহরনের ঘটনা যেমন সত্য তেমনি রিয়াদের বাড়ি ভাংচুরের ঘটনাও সত্য। তবে কারা ভাংচুরের ঘটনা ঘটিয়েছে তার সঠিকভাবে বলাও যাচ্ছেনা।

কোম্পানীগঞ্জ থানার পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) আবদুল মজিদ জানান, ঘটনাস্থলে উপ-পরিদর্শক মাসুদ কামাল উপস্থিত ছিল। পরবর্তীতে ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তার নির্দেশে আমিও ঘটনাস্থলে যাই। সেখানে রাজনৈতিক নেতৃবৃন্দের উপস্থিতিতে আপহৃতকে উদ্ধার করি এবং অপহৃতর পরিবারকে থানায় অভিযোগ দেয়ার জন্য বলি। তারা অভিযোগ দিলে তদন্ত সাপেক্ষে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে