টেকনাফ থেকে তেতুলিয়া দৌড়ে মাইলফলক রচনা করল কোম্পানীগঞ্জের আরাফাত

0
226
https://www.noakhalitimes.com

কোম্পানীগঞ্জ (নোয়াখালী) প্রতিনিধি :: নোয়াখালী জেলার কোম্পানীগঞ্জের মুছাপুর ইউনিয়নের ছেলে মোহাম্মাদ শামছুজ্জামান আরাফাত প্রথম ব্যাক্তি হিসেবে টেকনাফ থেকে তেতুলিয়া দৌড়ে পাড়ি দিয়ে মাইল ফলক রচনা করেছেন। এই জয়যাত্রা সফল করতে প্রতিদিন গড়ে ৫০ কিমি দৌড়ে ২০ দিন সময় নেন আরাফাত।

17197946_1103070506470054_286935401_n১৫ ফেব্রুয়ারী ২০১৭ টেকনাফের নোয়া পাড়া পরিবেশ টাওয়ার থেকে The Great Bangladesh Run এর যাত্রা শুরু হয় এবং এই জয়যাত্রা ৬ মার্চ ২০১৭ তেতুলিয়ার বাংলাবান্ধা জিরো পয়েন্টে শেষ হয়। এই ২০ দিনে তিনি ১০০০ কিমি বেশি পথ দৌড়ে পাড়ি দেন। এই যাত্রা মোটেও সহজ ছিলনা। বিভিন্ন প্রতিকূল অবস্থার সম্মূখীন হতে হয়েছে আরাফাতকে। হাটুঁতে ইনজুরি নিয়ে এই দীর্ঘ পথ পাড়ি দেন এবং নির্মানাধীন রাস্তায় দৌড়ানোটাও ছিল অনেক কষ্টসাধ্য। এর মধ্যে সবচেয়ে বড় প্রতিবন্ধকতা হয়ে দাড়ায় যমুনা সেতু পার হওয়া। নিরাপত্তাজনিত কারনে , যমুনা সেতু অতিক্রম করার অনুমতি পাওয়া যায়নি। কিন্তু কোন প্রতিকূলতাই আরাফাতকে দমিয়ে রাখতে পারেনি , প্রায় ৩ কিমি সাতঁরে পাড়ি দিয়েছেন খরস্রোতা যমুনা নদী। দ্যা গ্রেট বাংলাদেশ রান, রান ফর হেল্দি বাংলাদেশ এই প্রত্যয় নিয়ে বাংলাদেশে প্রথম বারের মত ১৫ফেব্রুয়ারী মোহাম্মদ সামসুজ্জামান আরাফাত তার টেকনাফ থেকে তেতুলিয়া দৌড় (১০০৪ কিলোমিটার) শুরু করেন ।

https://www.noakhalitimes.comলক্ষ্যে পৌঁছার পর গতকাল বেলা পৌনে ১১টায় বাংলাবান্ধা জিরো পয়েন্টে পৌঁছালে আরাফাতকে স্থানীয় স্কুল-কলেজের শিক্ষার্থীরা ফুল দিয়ে শুভেচ্ছা জানায়। পরে বিকেলে উপজেলাবাসীর পক্ষ থেকে চৌরাস্তার তেঁতুলতলার উন্মুক্ত মঞ্চে তাঁকে সংবর্ধনা দেওয়া হয়। এ সময় উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোহাম্মদ সানিউল ফেরদৌস, উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান রেজাউল করিম, উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক কাজী মাহমুদুর রহমান, উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদের কমান্ডার কাজী মাহবুবুর রহমান বক্তব্য দেন। এ সময় আরাফাতের হাতে সম্মাননা ক্রেস্ট ও উপহারসামগ্রী তুলে দেওয়া হয়।

মোহাম্মদ সামশুজ্জামান আরাফাত, পিতা- মোশারেফ হোসেন, নোয়াখালীর কোম্পানীগঞ্জের মুছাপুর ৬নং ওয়ার্ডের সম্ভ্রান্ত পরিবারে জন্মগ্রহন করেন।  আবুল মোবারক সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়, বামনী উচ্চ বিদ্যালয়, ঢাকা কমার্স কলেজ সর্বশেষ ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে বিবিএ  সম্পন্ন করে বর্তমানে এন,আর,বি কমার্শিয়াল ব্যাংক এ কর্মরত আছেন।

১৬ কোটি সুস্থ ও সম্বৃদ্ধিশালী মানুষের বাংলাদেশ গড়ে তোলার স্বপ্ন নিয়ে তার এই উদ্যোগ। একজন তুখোড় সাতারু হিসাবে তিনি দুবার পাড়ি দিয়েছেন বাংলা চ্যানেল (টেকনাফ থেকে সেন্টমার্টিন ১৬ কিমি দূরত্ব)।  তিনি স্বপ্ন দেখেন ইংলিশ চ্যানেল পাড়ি দেওয়ার। আইরন ম্যান অফ বাংলাদেশ হতে চান এই অদম্য মনোবলের অধিকারী মানুষটি। গতবছর ভারতের মেঘালয়ে চেরাপুন্জী ম্যারাথনে অংশগ্রহণ করে ফুল ম্যারাথন সম্পন্ন করেন। তার স্বপ্ন তিনি একদিন এভারেষ্টের চূড়া স্পর্শ করবেন। টেকসই উন্নয়ন লক্ষ্যমাত্রাকে সমর্থন করে তার এই দৌড়ের উদ্যোগ। প্রতিদিন ১ কিমি দৌড়ান নিজে সুস্থ থাকুন পরিবারকে সুস্থ রাখুন এটিই তার বার্তা।

লক্ষ্যে পৌঁছে আরাফাত নোয়াখালী টাইমস্‌কে বলেন, এটা একটা মাইন্ড গেম, ধৈর্য শক্তির পরীক্ষা। নিজের সাথে নিজের প্রতিযোগিতা করে যাচ্ছি প্রতিনিয়ত। আমার লক্ষ্য টেকসই উন্নয়ন লক্ষ্যমাত্রা গোল ৩ অর্জন, বাংলাদেশে খেলাধুলার প্রসার বাড়িয়ে মাদকমুক্ত একটি সুস্থ্য বাংলাদেশ গড়ে তোলা।

এই মহত উদ্যোগের সহযোগিতায় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় , পৃষ্ঠপোষকতায় এনআরবি কমার্সিয়াল ব্যাংক , কলাকৌশলে উডপেকার ।

মোহাম্মদ সামসুজ্জামান আরাফাত এর মত অনেকেই এভাবে এগিয়ে আসুক মাদক মুক্ত  সুস্থ বাংলাদেশ গড়ে তোলার স্বপ্ন নিয়ে এই কামনা এবং তার লক্ষ্যে পৌঁছার শুভকামনা করে কোম্পানীগঞ্জবাসী।
https://www.noakhalitimes.com

 

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে