দিন দিন বেড়েই চলেছে ভুয়া সংবাদ, কিন্তু কেন?

0
124

বিজ্ঞান-প্রযুক্তি ডেস্ক :: বিভিন্ন ধরনের সংবাদমাধ্যমে পাঠকদের বোকা বানানোর জন্য ভুয়া সংবাদের সন্ধান পাওয়া যায়। আর এ ধরনের সংবাদ বর্তমানে বেশ বিস্তারলাভ করেছে অনলাইনের কল্যাণে। কিন্তু কিভাবে তৈরি হয় এ ধরনের সংবাদ আর কিভাবেই তা আলোচিত হয়ে ওঠে? এক প্রতিবেদনে বিষয়টি জানিয়েছে বিবিসি।

বর্তমানে এমন সব সংবাদ অনলাইনে প্রকাশিত হচ্ছে এবং বিস্তার লাভ করছে, যার কোনো বাস্তব ভিত্তি নেই। আর এ বিষয়টি প্রায়ই অনলাইনে সংবাদপ্রাপ্তিকে প্রশ্নবিদ্ধ করছে।

বর্তমানে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমের কারণে বহু ভুয়া সংবাদই বিস্তারলাভ করছে। অতীতে যখন ছাপা মাধ্যমে সংবাদ প্রকাশিত হত, তখন এ ধরনের প্রবণতা কম ছিল। এ কারণে ভুয়া সংবাদের সঙ্গে বর্তমানে দ্রুতগতিতে বেড়ে ওঠা সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমের ওতপ্রোত সম্পর্ক রয়েছে।
বিশ্লেষকরা বলছেন, ভুয়া সংবাদের পেছনে মূল কাজটি করছে কিছু ওয়েবসাইট। বর্তমানে অসংখ্য ভুয়া সংবাদমাধ্যম অনলাইনে বিস্তার লাভ করেছে। এসব সংবাদমাধ্যমের নাম দিয়ে যা প্রচার করছে তা মূলত নিজেদেরই তৈরি সংবাদ। এগুলো প্রচুর পরিশ্রম করছে নিজেদের সংবাদমাধ্যম হিসেবে পরিচিত করাতে। যদিও বাস্তবে সংবাদমাধ্যম হিসেবে কাজ করার জন্য যে বিষয়গুলো প্রয়োজন তার কিছুই নেই তাদের।

তাহলে এ সংবাদমাধ্যমগুলো কিভাবে বিস্তার লাভ করছে? এ বিষয়টি বোঝার জন্য অনলাইনকে বুঝতে হবে। অনলাইনে আপনি অসংখ্য উৎস থেকে সংবাদ পাবেন। এখানে যে কেউ ইচ্ছা করলেই একটি সংবাদ তৈরি করতে পারে। কিন্তু এ সংবাদটি বাস্তবসম্মত কি না, তা পাঠকের বোঝার উপায় নেই। আর এ বিষয়টি অনলাইনে  থাকার কারণে সহজেই ফেসবুকসহ বিভিন্ন সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমের সহায়তায় বহু মানুষের কাছে পৌঁছে যায়। আর এটিই চায় বহু ভুয়া পোর্টাল। তাদের সংবাদের হেডলাইন যদি মানুষকে আকর্ষণ করতে পারে তাহলেই অনেকাংশে কাজটি সমাধান হয়ে যায়। আর ভেতরে যদি কিছু বাড়তি বিভ্রান্তিকর তথ্য যোগ করা যায় তাহলে তা হিট বাড়াতে আরও কাজ করে। আর এ হিট থেকেই বিজ্ঞাপনের মাধ্যমে ব্যবসার সুযোগ তৈরি হয়।

চটকদার এ ধরনের সংবাদ পাঠকেরা সত্য-মিথ্যা যাচাই না করেই পড়তে পারে। আর এতে ওয়েবসাইটগুলোও হিট পেয়ে যায়। অনেক সময় মিথ্যা সংবাদগুলোকে সত্য বলেও মনে করে বহু মানুষ।

তাহলে পাঠকের এ থেকে রক্ষা পাওয়ার উপায় কী? এ বিষয়ে সবচেয়ে ভালো হলো, আপনি কোন সূত্র থেকে সংবাদটি পড়ছেন তা খেয়াল করা। সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে যে কোনো সংবাদ থাকলেই তা বিশ্বাস করা যাবে না। দেখতে হবে, এটি কোনো নির্ভরযোগ্য সংবাদমাধ্যম থেকে এসেছে কি না।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে