নোবিপ্রবির স্নাতক শ্রেণীতে ভর্তি পরীক্ষা সম্পন্ন

0
127

নোবিপ্রবি প্রতিবেদক :: উৎসবমুখর পরিবেশে নোয়াখালী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের ২০১৬-১৭ শিক্ষাবর্ষের স্নাতক শ্রেণীর ভিবিন্ন গ্রুপের ভর্তি পরীক্ষা শুক্রবার সুষ্ঠুভাবে সম্পন্ন হয়েছে। নোবিপ্রবি ক্যাম্পাস এবং ক্যাম্পাসের বাইরে ৩১টি কেন্দ্রে একযোগে সকাল ১০.৩০ থেকে ১২.০০ টা এবং বিকেল ৩.৩০ থেকে ৫.০০ টা পর্যন্ত এ পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়।

ভর্তি পরীক্ষায় ইঞ্জিনিয়ারিং অনুষদের ‘এ’ গ্রুপের পরীক্ষায় ৩০০ আসনের বিপরীতে ২০ হাজার ২৩২ জন পরীক্ষার্থী আবেদন করে। প্রতি আসনের জন্য প্রতিদ্বন্দ্বিতা করে ৬৭ জন। আর বিজ্ঞান অনুষদেও ‘বি’ গ্রুপের অধীন ৩০০ আসনের বিপরীতে আবেদন করে মোট ১৬ হাজার ৪২২ জন পরীক্ষার্থী। এতে প্রতি আসনের জন্য লড়াই করে ৫৪ জন। ‘সি’ গ্রুপের পরীক্ষায় ১২০ আসনের বিপরীতে ৩ হাজার ৮৪০ জন পরীক্ষার্থী আবেদন করে। প্রতি আসনের জন্য প্রতিদ্বন্দ্বিতা করে ৩২ জন। আর ‘ডি’ গ্রুপে ১৪০ আসনের বিপরীতে আবেদন করে মোট ৫ হাজার ১৪৯ জন পরীক্ষার্থী। এতে প্রতি আসনের জন্য লড়াই করে ৩৬ জন। আজকের অনুষ্ঠিতব্য ‘এ ও বি’ গ্রুপের পরীক্ষায় মোট পরীক্ষার্থীর উপস্থিতি ছিলো শতকরা ৭৫ ভাগ এবং ‘সি ও ডি’ গ্রুপের পরীক্ষায় মোট পরীক্ষার্থীর উপস্থিতি ছিলো শতকরা ৭০ ভাগ। 

বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য ও ভর্তি কমিটির চেয়ারম্যান প্রফেসর ড. এম অহিদুজ্জামান, উপ-উপাচার্য প্রফেসর ড. মো. আবুল হোসেন, ভর্তি কমিটির সচিব ও বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিস্ট্রার প্রফেসর মো. মমিনুল হক, বিজ্ঞান অনুষদের ডিন ড. মো. হুমায়ুন কবির, প্রভোস্ট ড. মো. ইউছুফ মিঞা সহ উচ্চ পর্যায়ের একটি ভিজিল্যান্স টিম বিভিন্ন কেন্দ্র পরিদর্শন করেন। নোয়াখালী সরকারী কলেজ পরিদর্শনকালে এসময় উপাচার্য সাংবাদিকদের বলেন, নোবিপ্রবি পরিবারের সকল শিক্ষক-কর্মকর্তা-কর্মচারীদের অক্লান্ত পরিশ্রমের পাশাপাশি স্থানীয় প্রশাসনের সহায়তায় অত্যন্ত মানসম্পন্নভাবে ও যত্নসহকারে এ ভর্তি কর্মযজ্ঞ সম্পন্ন হচ্ছে। এজন্য উপাচার্য সকলকে ধন্যবাদ জানান।

রেজিস্ট্রার প্রফেসর মো. মমিনুল হক বলেন, এবারের পরীক্ষায় এ যাবতকালের মধ্যে সর্বোচ্চ উপস্থিতি হয়েছে। আমরা পূর্বনির্ধারিত তারিখ ও  সময়ের মধ্যেই পরীক্ষা কার্যক্রম পরিচালনা করছি। পরীক্ষা পরিচালনায় জেলা প্রশাসন ও স্থানীয় পুলিশ প্রশাসন আমাদের সার্বিকভাবে সহযোগীতা করছে।

এদিকে পরীক্ষা শেষে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর মুহাম্মদ মুশফিকুর রহমান বলেন, আমরা সকল কেন্দ্র থেকে খোঁজ নিয়ে জানতে পারি পরীক্ষায় কোনো ধরনের অসুদপায় অবলম্বনের চেষ্টা হয়নি। জালিয়াতি চক্রের ফাঁদে পা না দেওয়ার জন্য ছাত্র ও অভিভাবকদের উদ্দেশ্যে তিনি বলেন, বিশ্ববিদ্যালয়ের বর্তমান সিস্টেমের ভর্তি পরীক্ষায় কোনো ধরনের জালিয়াতির সুযোগ নেই।

পরীক্ষা উপলক্ষে ক্যাম্পাসের সর্বত্র উৎসবমুখর পরিবেশ বিরাজ করে। পরীক্ষার্থীদের সঙ্গে অভিভাবকরাও এসেছেন। ভর্তিচ্ছু শিক্ষার্থীদের শুভেচ্ছা জানিয়ে বিভিন্ন ধরনের ব্যানার-ফেস্টুন দিয়ে ক্যাম্পাসের প্রতিটি জায়গাকে সাজানো হয়েছে। এছাড়া বিভিন্ন জেলাভিত্তিক ছাত্রফোরামগুলো  বিশ্ববিদ্যালয়ের মূল ফটকের কাছে তথ্য কেন্দ্রে খুলে শিক্ষার্থীদের সহায়তা করে। ভর্তিচ্ছুদের সহায়তার জন্য পরীক্ষার হলগুলোর সামনেও তথ্য কেন্দ্র স্থাপন করেছে তারা।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে