পরিবহন সেক্টরের লোকজন কি আইনের উর্ধ্বে : হাইকোর্টের রায় না মানা ধৃষ্ট্রতা

0
134
https://www.noakhalitimes.com

গোলাম সারোয়ার :: পরিবহন নেতারা আইন মানছেন না। তাদের আইন না মানাতে প্ররোচিত করছেন কারা, মানুষ তা লক্ষ্য রাখছেন। মানুষ এগুলো ভালো চোখে দেখেন না।

একজন প্রভাবশালী নেতা বললেন, এই ধর্মঘট অযৌক্তিক। প্রক্ষান্তরে অন্যজন ধর্মঘটীদের পক্ষেই সাফাই বক্তব্য দিলেন। কিন্তু সরল মানুষ জানেন সরল অংক।

সরল অংক হলো, একটি ঘটনার ন্যায়দন্ডে দুই বিপরীত পক্ষের বক্তব্য সঠিক হতে পারেনা। যিনি ভুল বক্তব্য দিলেন, তাঁর দায়িত্ব বক্তব্য প্রত্যাহারের।

অবস্থা আজ কৌলাস পর্বতের আর্যদের দেবসমাজের দেবদেবীদের মতো হয়ে যাচ্ছে যেন। যেখানে শিব, ব্রহ্মা, বিষ্ণু যার যার হাতে সাড়ে তিন হাত। একজন যদি শাপ দেয়–সূর্য উঠলে মরবি, অন্য জন সূর্যের উদয়ই ঠেকিয়ে রাখেন।

এই অবস্থার অবসান হতে হবে। সমন্বয় লাগবে। যে শক্তিমান নেতা বললেন, বাসচালক নেতারা কোনো নির্দেশনা মানতে চাইছেন না–তাঁকে বুঝতে হবে, বাস চালকগণ মঙ্গলগ্রহের মানুষ নন যে তাদের আইন মানতে হবেনা। তাদের পিছন থেকে সরে দাঁড়ান। দেখেন আইন মানেন কিনা!

প্রতিটি ক্ষেত্রেই যদি রাষ্ট্রের শীর্ষ নেতৃত্বকে মাথা ঘামাতে হয়, তাহলে একদিন আপনাদের প্রয়োজন ফুরিয়ে যাবে। মানুষের কষ্টকে অনুভব করে চালকদের ইন্ধন না দেওয়ার দাবি মানুষ করতেই পারে।

চালকদের বলবো, দেশবাসীকে তো কষ্ট দিচ্ছেনই, সাথে নিজের সন্তানদেরও কষ্ট দিচ্ছেন। দিন শেষে মনে রাখতে হবে, আমরা যে কাজ করি, সে কাজই আমাদের করে খেতে হবে।

গোলাম সারোয়ার
সাংবাদিক ও কলামিষ্ট।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে