ফেনীতে আধিপত্য বিস্তার নিয়ে যুবলীগকর্মী খুন, অস্ত্রসহ আটক ২

0
114
http://www.noakhalitimes.com

ফেনী সংবাদদাতা :: ফেনীতে আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে নিজদলীয় কর্মীদের হামলায় খুন আবদুল করিম (৩৫) নামের এক যুবলীগকর্মী। আজ বুধবার ভোরে সংঘর্ষের পর দুপুরে ঢাকায় মারা যান তিনি।

এ ঘটনায় সালাউদ্দিন ও আনোয়ার নামের দুই যুবলীগকর্মীকে আটক করেছে পুলিশ। এ সময় দুটি বিদেশি পিস্তল, দুটি ম্যাগাজিন ও ছয় রাউন্ড গুলি উদ্ধার করেছে। নিহত আবদুল করিম মঠবাড়িয়া গ্রামের আবদুল হকের ছেলে। করিম সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান আরজু সমর্থক ছিলেন বলে স্থানীয়রা জানায়। তার মৃত্যুর খবর ছড়িয়ে পড়লে একদল যুবক ধর্মপুর ইউপি অফিসের আসবাবপত্র ভাঙচুর ও তাতে অগ্নিসংযোগ করে।

পুলিশ জানায়, ধর্মপুর বাজার এলাকায় আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে আজ বুধবার ভোরে সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান ও জেলা যুবলীগের সাবেক আহ্বায়ক আজহারুল হক আরজু ও বর্তমান ইউপি চেয়ারম্যান শাখাওয়াত হোসেন শাকা পক্ষের মধ্যে হামলা-পাল্টা হামলার ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় গুরুতর আহত হন যুবলীগকর্মী আবদুল করিম। আশঙ্কাজনক অবস্থায় তাকে ঢাকার একটি হাসপাতালে ভর্তি করানো হলে দুপুর ১টার দিকে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান তিনি।

ফেনী মডেল থানার ওসি রাশেদ খাঁন চৌধুরী ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন। তিনি জানান, দুপুর দেড়টা পর্যন্ত এ ঘটনায় কোনো মামলা হয়নি। তিনি জানান, ঘটনাস্থলে পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে। এ বিষয়ে আইনি ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলেও জানান ওসি।

স্থানীয়রা জানান, করিমের মৃত্যুর খবর ছড়িয়ে পড়লে আরজু সমর্থকরা ক্ষুব্ধ হয়ে ওঠে। দুপুর দেড়টার দিকে একদল কর্মী ইউপি অফিসের ভেতরে ঢুকে ও সামনে গিয়ে বিক্ষোভ প্রদর্শন, আসবাবপত্র ভাঙচুর ও তাতে অগ্নিসংযোগ করে। পরে পুলিশ ধাওয়া করলে পালিয়ে যায় তারা।

প্রসঙ্গত, ফেনী সদরের ধর্মপুরে যুবলীগের দুটি পক্ষ সক্রিয়। এর একটি অংশ সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান আরজু ও অপর অংশ বর্তমান চেয়ারম্যান শাকার অনুসারী হিসেবে পরিচিত।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে