হামিদ মীরদের পাকিস্তানী মনন : আজো আবেদ আলিমের ঘরে জালিমের জন্ম হয়

1
134

গোলাম সারোয়ার :: বাংলাদেশের মহান মুক্তিযুদ্ধ ছিলো একটি যৌক্তিক প্রতিরোধ যুদ্ধ, মুক্তির যুদ্ধ। বিশ্বের বিবেকবান মানুষ সেই যুদ্ধে বাঙ্গালীদের পক্ষে ছিলেন ।

একটি দুর্বৃত্ত রাষ্ট্র দুর্বৃত্ত হয় মূলত শাসকদের কারণে। সাধারণ মানুষদের ভিতরে সেখানেও ন্যায়বান মানুষ থাকা স্বাভাবিক। সেসব ন্যায়বান মানুষদের ভিতরে যাঁরা সাহসী ছিলেন সেসব মানুষেরা সে সময় পাকিস্তানী অমানুষ শোষকদের বিরুদ্ধে বিশ্বব্যাপী পথে নেমে এসেছিলেন বাংলাদেশের মানুষদের পক্ষে সমর্থন জানাতে।

পাকিস্তানের বর্তমান জিউ নিউজের নির্বাহী সম্পাদক হামিদ মীরের পিতা ওয়ারিশ মীরও তেমনি একজন মানুষ ছিলেন যিনি বাংলাদেশের মুক্তি সংগ্রামের পক্ষে লড়াই করেছেন শাসকদের বিরুদ্ধে।

স্বাধীনতার সাড়ে তিন বছরের মাথায় দেশ পড়ে মহাসংকটে। বাংলাদেশ আবারও তার গতি হারিয়ে পিছনের দিকে হাঁটা শুরু করে। প্রায় একুশ বছর দেশে চলে আইয়ামে জাহেলিয়াতে শাসন। তাই এই সময়ে বাংলাদেশ তার জন্মের সময়ের বন্ধুদের সম্মান জানাতে পারেনি।

বর্তমান সরকার ক্ষমতায় আসার পর এই ব্যাপারে ভাবতে থাকেন। তারই ধারাবাহিকতায় ২০১১ সাল থেকে ‘ফরেন ফ্রেন্ডস অব বাংলাদেশ অ্যাওয়ার্ড’ প্রদান শুরু করে বাংলাদেশ। আর ২০১৩ সালে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা অন্যান্য বিদেশি বন্ধুদের সঙ্গে অধ্যাপক ওয়ারিশ মীরসহ পাঁচ পাকিস্তানিকেও সম্মাননা প্রদান করেন।

সে সময় জনাব ওয়ারিশ মীরের পক্ষে সে পুরস্কার গ্রহণ করেন তাঁর পুত্র হামিদ মীর। এছাড়া অন্যদেরও উত্তর প্রজন্ম সে সম্মাননা গ্রহন করেন। যেমন বিপ্লবী কবি হাবীব জালিবের মেয়ে তাহিরা জালিব, প্রখ্যাত কবি ফয়েজ আহমদ ফয়েজের মেয়ে সেলিমা হাশমি, মালিক গুলাম জিলানির মেয়ে আসমা জাহাঙ্গীর এবং গাউস বক্স বিজেনজোর ছেলে হাসিল বক্স বিজেনজো সম্মাননা গ্রহণ করেন।

সে সম্মাননা হামিদ মীর অর্জন করেন নি। তাই সেই সম্মাননার গুরুত্ব গভীরতাও তার বুঝার কথা নয়। সম্প্রতি সেই মহান মুক্তিযুদ্ধে বাংলাদেশকে সমর্থন জানানোয় তার বাবাকে দেয়া বাংলাদেশের মৈত্রী-সম্মাননাটি ফিরিয়ে দেওয়ার ঘোষণা দিয়েছেন তিনি। এছাড়া ‘ফরেন ফ্রেন্ডস অব বাংলাদেশ অ্যাওয়ার্ড’ নামের ওই সম্মাননার মাধ্যমে বাংলাদেশ সরকার পাকিস্তানকে ধোঁকা দিয়েছে বলে মন্তব্য করেছেন তিনি।

গতকাল বৃহস্পতিবার জিও নিউজের এই নির্বাহী সম্পাদক নিজের ‘ক্যাপিটাল টক’ অনুষ্ঠানে বলেন, বাবার পক্ষে সম্মাননা গ্রহণের সময় ভেবেছিলাম তিনি (শেখ হাসিনা) দুই দেশের সম্পর্কন্নোয়নে কাজ করবেন, কিন্তু তা না করে ইচ্ছাকৃতভাবে বাংলাদেশ-পাকিস্তানের সম্পর্ক ক্রমেই খারাপের দিকে নিয়ে যাচ্ছেন তিনি।

আমরা হামিদ মীরকে বললো, আপনার রাষ্ট্র একাত্তরের কুকর্মের জন্যে আজো যে ক্ষমা চাইলো না, সে ব্যাপারে আপনার টিভিতে আপনার দেশের অপদার্থ সরকারগুলোর বিরুদ্ধে কয়টি কথা বলেছিলেন !

বাংলাদেশে জনাব হামিদ মীরকে প্রমোট করেন যেই বড় সংবাদ গ্রুপ তাঁদের বলবো, যদি দেশপ্রেমের ছিঁটে ফোটা আপনাদের ভিতরে থেকে থাকে তবে হামিদ মীরকে উপযুক্ত জবাব দিন। আপনাদের আরেক আন্তর্জাতিক প্রমোটি শান্তির মালিকের আত্মার সাথে জনাব হামিদ মীরের আত্মার মিলের গন্ধ পাচ্ছি আমরা ।

ওয়ারিশ মীর ছিলেন একজন ভদ্রলোক। বাংলাদেশ হামিদ মীরকে নয় বরং ওয়ারিশ মীরকে সম্মান দিয়েছেন। এটি বুঝতে হলে যে জ্ঞান আর জীবনবোধ থাকতে হয়, হামিদ মীরের সম্ভবত তা আদৌ নেই। প্রবাদে বলে, আলিমের ঘরেও জালিমের জন্ম হয়…

লেখক : গোলাম সারোয়ার
সাংবাদিক ও কলামিষ্ট

1 মন্তব্য

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে