হেফাজতের সঙ্গে জোট হয়নি : কাদের

0
130

নিউজ ডেস্ক :: হেফাজতে ইসলামের সঙ্গে আওয়ামী লীগের জোট হয়ে যায়নি। চিন্তাধারারও মিলমিশ হয়নি। দেশের বাস্তবতা বিবেচনা করে রাজনীতি করছে আওয়ামী লীগ। আজ বৃহস্পতিবার বেলা ১১টায় আওয়ামী লীগ সভাপতির ধানমন্ডির কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে এ কথা বলেছেন দলের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের।

প্রধানমন্ত্রীর ভারত সফরের সময় বিভিন্ন সমঝোতা স্মারক ও চুক্তি নিয়ে বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার সংবাদ সম্মেলনের পাল্টা জবাব দিতে এ সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করে আওয়ামী লীগ।

এ সময় হেফাজতে ইসলাম প্রসঙ্গে সরকারের নমনীয়তা নিয়ে প্রশ্ন করা হলে ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘হেফাজতে ইসলামের সঙ্গে আওয়ামী লীগের অ্যালায়েন্স (জোট) হয়ে যায়নি। তাদের চিন্তাধারার সঙ্গে মিলমিশ হয়ে গেছে—এ রকমও নয়। আর হেফাজত ও কওমি মাদ্রাসা দুটো এক জিনিস নয়। সরকার বাস্তবতা বিবেচনা করে কওমি মাদ্রাসার সনদে স্বীকৃতি দিয়েছে।’

হেফাজতে ইসলামের সনদে স্বীকৃতি দেওয়া ও হাইকোর্টের সামনের ভাস্কর্য সরানোর দাবিতে তাদের সঙ্গে প্রধানমন্ত্রীর একমত পোষণ করায় আলোচনা হচ্ছে, সরকার হেফাজতে ইসলামের সঙ্গে সমঝোতা করছে কি না—এমন প্রশ্নের জবাবে ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘বাস্তবতা বিবেচনা করে রাজনীতি করা হচ্ছে। দেশে রাজনৈতিক ও সামাজিক যে বাস্তবতা রয়েছে এবং জাতির যে অনুভূতি রয়েছে, তাতে আমরা যাঁরা রাজনীতি করি, তাঁদের সেই বাস্তবতা নিয়ে এগোতে হবে। বাস্তবতা মেনে যাঁরা সিদ্ধান্ত নিতে পারেন, তাঁরাই প্রগতিশীল রাজনীতি করেন। আমরা সেটা মেনে নিয়ে রাজনীতি করছি।’

ভারতের সঙ্গে সামরিক সমঝোতা স্মারক স্বাক্ষর নিয়ে বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার সমালোচনার জবাবে দলে ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘চীনের সঙ্গেও খালেদা জিয়া সমঝোতা স্মারক স্বাক্ষর করেছিলেন। তখন তো তা নিয়ে কোনো আলোচনা হয়নি। সংসদে বা সংসদের বাইরে কোনো রাজনৈতিক দল বা ব্যক্তি সে সময় সমালোচনা করেননি। ভারতের সঙ্গে একই সমঝোতা স্মারক স্বাক্ষর করায় কেন এই সমালোচনা? ভারত তো আমাদের বন্ধুপ্রতিম দেশ। মুক্তিযুদ্ধের সময় সহযোগিতা করেছে। মুক্তিযুদ্ধের সরাসরি বিরোধিতা করেছে—এমন দেশের সঙ্গে সমঝোতা স্মারক সই করার সময় তো সমালোচনা হয়নি।’

সাধারণ সম্পাদক জানান, ভারতসহ ১৩টি দেশের সঙ্গে এ ধরনের সামরিক সমঝোতা স্মারক সই হয়েছে। কোনো কোনো দেশের সঙ্গে চুক্তির প্রক্রিয়া চলছে। এটা শুধু ভারতের সঙ্গে হচ্ছে না।

সংবাদ সম্মেলনে আরও উপস্থিত ছিলেন দলের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য আবদুর রাজ্জাক, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাহবুব উল আলম হানিফ ও জাহাঙ্গীর কবির নানক, দপ্তর সম্পাদক আবদুস সোবহান গোলাপ, প্রচার সম্পাদক হাছান মাহমুদ, সাংগঠনিক সম্পাদক বাহাউদ্দিন নাছিম, আহমদ হোসেন ও এনামুল হক শামীম, উপদপ্তর সম্পাদক বিপ্লব বড়ুয়া প্রমুখ।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে