কোম্পানীগঞ্জে অপহৃত ব্যবসায়ী ৬ ঘন্টা পর উদ্ধার, আটক ৩

0
117
https://www.noakhalitimes.com
এএইচএম মান্নান মুন্না :: নোয়াখালীর কোম্পানীগঞ্জে অপহৃত পোল্ট্রি ব্যবসায়ীকে অপহরণের ৬ঘন্টা পর উদ্ধার করেছে পুলিশ। ঘটনাটি ঘটেছে সিরাজপুর ইউপির ৫নং ওয়ার্ডে,১২ মে রবিবার রাত সাড়ে বারটায়।

এ সময় অপহরণকারীরা তাদের চক্রের নারী সদস্যের সাথে অপহৃত ব্যবসায়ীর বিবস্ত্র ছবি মুঠোফোনে ধারণ করে। পুলিশের হাতে আটক অপহরণকারী চক্রের সেকেন্ড ইন কমান্ড সুজনের তথ্য অনুসারে অপহৃতা ব্যবসায়ী মো.জসিম উদ্দিন (৩০), কে উদ্ধার করে পুলিশ। এ ঘটনায় অপহরণকারী দেলোয়ার হোসেন সুজন (২২),এর ভাষ্য অনুসারে অপহরণ চক্রের নারী সদস্য শিল্পী ও আনুকে আটক করেছে পুলিশ। অপহৃত জসিম সিরাজপুর ইউপির ৫নং ওয়ার্ডের দানা মিয়ার বাপের বাড়ির মৃত-আবদুল বারেক’র ছেলে। অন্যদিকে,আটক অপহরণকারী সুজন সিরাজপুর ইউপির ৩নং ওয়ার্ডের চনু মিয়া মেস্তরী বাড়ির নুরনবীর ছেলে।

অভিযোগ সূত্রে জানা যায়, সিরাজপুর ইউপির ৩নং ওয়ার্ডের অপহরণ চক্রের কাজী,সুজন,হৃদয়,মামুন,রাজীব’র নেতৃত্বে একই ইউপির ৫নং ওয়ার্ডের ব্যবসায়ী জসিমকে অপহরণ করে। পরবর্তিতে অপহরণ চক্র মুঠোফোনে অপহৃতার পরিবারের কাছে ২লক্ষ টাকা মুক্তিপণ দাবি করে। অপহৃতার পরিবার বিষয়টি কোম্পানীগঞ্জ থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মো. আসাদুজ্জামানকে অবহিত করলে তিনি তাৎক্ষণিক মোবাইল ট্র্যাকিংয়ের মাধ্যমে অপহৃরণকারীদের অবস্থান নির্ণয় করেন। 

মোবাইল ট্র্যাকিংয়ের সূত্র ধরে কোম্পানীগঞ্জ থানার উপ-পুলিশ পরিদর্শক (এসআই) তাজুল ইসলাম ও এএসআই জসিম উদ্দিন অভিযান পরিচালনা করে। এসময় মুক্তিপনের জন্য অপেক্ষারত অপহরণকারী সুজনকে পুলিশ আটক করে। এ সময় অপহরণকারী চক্রের কাজী,হৃদয়,মামুন,রাজীব পালিয়ে যায়।

স্থানীয় অভিযোগ সূত্রে জানা যায় এই অপহরণকারী চক্র কৌশলে সাধারণ মানুষকে অপহরণ পরবর্তিতে মুঠোফোনে বিবস্ত্র ছবি ধারণ করে ব্ল্যাকমেইল করে বড় অংকের অর্থ হাতিয়ে নেয়।

এ বিষয়ে কোম্পানীগঞ্জ থানার অফিসার ইনচার্জ মো.আসাদুজ্জামান’র মুঠোফোনে যোগাযোগ করলে তিনি ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেন। এ সময় তিনি আরো জানার এ ঘটনায় অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে অপহরণ মামলা দায়ের করা হবে।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে