কোম্পানীগঞ্জে প্রশাসনের নির্দেশকে বৃদ্ধাঙ্গুলি : নদী থেকে বালু উত্তোলন ও বিক্রি অব্যাহত

0
126
https://www.noakhalitimes.com

কোম্পানীগঞ্জ (নোয়াখালী) প্রতিনিধি :: কিছু প্রভাবশালী রাজনৈতিক নেতার ছত্রছায়ায় প্রশাসনের নির্দেশেকে বৃদ্ধাঙ্গুলি প্রদর্শন করে নোয়াখালীর কোম্পানীগঞ্জের চরহাজারী ও মুছাপুর ইউনিয়নের পুর্ব অংশে প্রবাহিত ছোট ফেনী নদী থেকে অবৈধ ভাবে বালু উত্তোলন ও মাটি বিক্রয় করছে স্থানীয় কিছু রাজনৈতিক নেতা ও প্রভাবশালী ব্যাক্তি।

স্থানীয় সুত্রে ও সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়,গত কয়েক সপ্তাহ ধরে নদী থেকে অবৈধভাবে বালু উত্তোলন করে বিক্রি করছে কিছু অসাধু লোক এই খবর জানতে পেরে গত সপ্তাহে কোম্পানীগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোহাম্মদ ইসমাঈল হোসেন ও পানি উন্নয়ন বোর্ড কর্মকর্তা সরেজমিনে এসে বালু উত্তোলন বন্ধ করতে নির্দেশ দিয়ে যান। নির্দেশ অমান্য করে অবৈধভাবে বালু উত্তোলন ও মাটি বিক্রি করলে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে সতর্ক করে দিয়ে যান।

জানা যায়, সতর্কবার্তার পর দু- তিন দিন বন্ধ ছিলো বালু উত্তোলন। তারপর আবার পুরোদমে বালু উত্তোলন ও বিক্রয় শুরু হয়। আগে নদীর পুর্ব পাশ থেকে শুধুমাত্র বালু উত্তোলন করা হত কিন্তু ১ মার্চ বুধবার থেকে হাফেজীয়া মাদরাসার পুর্ব পাশে নদী থেকে মাটি কেটে বিক্রয় করা হচ্ছে।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক সচেতন ব্যাক্তি জানান, এলাকার মানুষ ভয়ে কিছু বলতে পারছে না। এধরনের কর্মকান্ড কখনই উচিত নয়। প্রশাসনের অবিলম্বে কঠোর ব্যাবস্থা নেয়া উচিত।

এ বিষয়ে চরহাজারী ইউপি চেয়ারম্যান মোহাম্মদ নুরুল হুদার কাছে মুঠো ফোনে জানতে চাইলে তিনি বলেন,আমি কয়েকদিন আগে যখন জেনেছি তখন মাননীয় ইউএনও মহোদয় বালু উত্তোলন বন্ধ করে সতর্ক করে দিয়েছিলেন। আমি অসুস্থতাজনিত কারনে চিকিৎসার জন্য প্যানেল চেয়ারম্যান কে দায়িত্ব দিয়ে ঢাকায় এসেছি। তাই বর্তমানে বালু উত্তোলন ও মাটি বিক্রয় সম্পর্কে অবগত নয়।

কোম্পানীগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোহাম্মদ ইসমাঈল হোসেনের কাছে মুঠো ফোনে এ ব্যাপারে জানতে চাইলে তিনি বলেন, নির্দেশ অমান্য করে অবৈধভাবে বালু উত্তোলন ও মাটি বিক্রয়কারীদের বিরুদ্ধে  শীগ্রই আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে