কোম্পানীগঞ্জে রিক্সা শ্রমিকদের ঘামের টাকা চাঁদাবাজদের পকেটে

প্রতিবাদে বিক্ষোভ মিছিল: প্রশাসনে অভিযোগ

0
586
https://noakhalitimes.com

কোম্পানীগঞ্জ (নোয়াখালী) প্রতিনিধি :: নোয়াখালী কোম্পানীগঞ্জ উপজেলার বসুরহাট বাজারে ব্যাটারী চালিত অটোরিক্সা শ্রমিকদের থেকে সমিতির নাম ভাঙ্গিয়ে অবৈধভাবে চাঁদাবাজির অভিযোগে বিক্ষোভ মিছিল করেছে রিক্সা শ্রমিকরা। উপজেলা নির্বাহী অফিসার বরাবর লিখিত অভিযোগ দায়ের।

মঙ্গলবার (১৩ অক্টোবর) সকাল ১১টায় কোম্পানীগঞ্জ ব্যাটারী চালিত অটোরিক্সা মালিক শ্রমিক সমবায় সমিতির নাম ভাঙ্গিয়ে চাঁদাবাজির অভিযোগে এ বিক্ষোভ মিছিল করে ৫শতাধিক অটোরিক্সা শ্রমিক। মিছিলটি বসুরহাট বাজারের প্রধান প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ শেষে উপজেলা চত্তরে বিক্ষোভ সমাবেশ করে। সমাবেশ শেষে শ্রমিকরা কোম্পানীগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. জিয়াউল হক মীর’র কাছে চাঁদাবাজির অভিযোগ এনে ৯জনের বিরুদ্ধে লিখিত অভিযোগ দেয়।

লিখিত অভিযোগে শ্রমিকরা জানায়, আমরা বসুরহাট পৌরসভার লাইসেন্সধারী অটোরিক্সা চালক। রেজিস্ট্রেশন বিহীন কোম্পানীগঞ্জ ব্যাটারী চালিত অটোরিক্সা মালিক সমবায় সমিতি’র নামে আবদুল মালেক ও জগবন্ধু ভৌমিক দুলাল এর নেতৃত্বে অটোরিক্সা চালকদের মাথাপিছু ভর্তি বাবদ ৩শ টাকা, লাইসেন্স ফি দেখিয়ে ৫শ টাকা, পোশাক বাবদ ৫শ টাকা ও মাসিক চাঁদা বাবদ ২শ ৫০টাকা জোরপূর্বক আদায় করে। চালকরা টাকা দিতে ব্যর্থ হলে যাত্রীদের নামিয়ে লাঠিয়াল বাহিনী দিয়ে রিক্সা সিট নিয়ে যায়। সিটের জন্য গেলে জগবন্ধু ভৌমিক দুলালের মিষ্টি দোকানের পেছনে ৫সদস্যের একটি লাঠিয়াল বাহিনী গঠন করে একটি টর্চারসেলের আদলে শ্রমিকদের নিয়ে নির্যাতন করে। অপরদিকে টাকা পরিশোধ করেও কোন কোন চালকের নতুন সিট নিয়ে তাদেরকে দেয়া হয় পুরাতন সিট এবং নতুন সিটগুলো অন্যত্র বিক্রি করে। শ্রমিকরা প্রতিবাদ করলে তাদের রিক্সার নতুন সিটগুলো ব্লেড দিয়ে কুশন কেটে দিয়ে শ্রমিকদের আর্থিক ক্ষতি করে।

এ নৈরাজ্য থেকে মুক্তির জন্য শ্রমিকরা এ বিক্ষোভ মিছিল করে। মিছিল শেষে শ্রমিকদের পক্ষে আবদুল হক ওরপে হারুন বাদী হয়ে আবদুল মালেক, জগবন্ধু ভৌমিক দুলাল, সিরাজুল ইসলাম ফুটন, শাকিল, সুমন, শিহাব, বেচু, সুজন ও রইসল হক এর বিরুদ্ধে চাঁদাবাজির একটি অভিযোগ দায়ের করে।

কোম্পানীগঞ্জ ব্যাটারী চালিত অটোরিকশা মালিক শ্রমিক সমবায় সমিতি’র সাধারণ সম্পাদক জগবন্ধু দুলাল চাঁদাবাজির অভিযোগ নাকচ করে দিয়ে বলেন, আমাদের সমিতি বসুরহাট বাজারে যানজট নিরসনে কাজ করছে। সমিতির সদস্যদের ভর্তি ফিস এবং মাসিক সার্ভিস চার্জ দিয়ে সমিতির লাইন ম্যান এবং অফিস খরচ চালানো হয়। এ ছাড়াও আদায়কৃত অর্থ থেকে পঞ্চাশ টাকা সমিতির সদস্যের নামে তাদের সঞ্চয় হিসাবে জমা থাকে।

কোম্পানীগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো.জিয়াউল হক মীর বলেন, অটোরিক্সা শ্রমিকদের পক্ষে দু’জন এসে ৯জনের বিরুদ্ধে একটি লিখিত অভিযোগ দিয়েছে। থানা ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তাসহ আমরা এর সঠিক তদন্ত করে আইনগত ব্যবস্থা নিব।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে