কোম্পানীগঞ্জে সিকদার-রিপন’র বিরুদ্ধে ঝাড়ু নিয়ে বিক্ষোভ মিছিল

Date:

কোম্পানীগঞ্জ (নোয়াখালী) প্রতিনিধি :: এক সময়ে বিএনপির দূর্গ ও প্রয়াত সদস্য ব্যারিস্টার মওদুদ আহমদের নিজ এলাকা নোয়াখালীর কোম্পানীগঞ্জ উপজেলায় বিএনপি নেতাদের গালে ‘জুতা মারতে’ এবং ঝাড়ু নিয়ে বিক্ষোভ মিছিল করেছেন দলীয় নেতাকর্মীরা।

শনিবার (২৯ জুন) বিকেলে চরহাজারী ইউনিয়ন পরিষদের সামনে অবৈধ কমিটি ঘোষণার পর থেকে এর প্রতিবাদে বিভিন্ন ইউনিয়নে মিছিল বিক্ষোভ অব্যাহত রেখেছে বিএনপির তৃণমূলের পদ বঞ্চিত নেতা কর্মীরা।

মিছিলে বিক্ষুব্ধ নেতাকর্মীরা স্লোগান তোলেন, ‘সিকদারের গালে গালে জুতা মারো তালে তালে’; ‘বুদ্ধি রিপনের গালে গালে জুতা মারো তালে তালে’; ‘অবৈধ কমিটি মানি না মানবো না’; ‘টাকা খেয়ে কমিটি মানবো না মানবো না’।জিয়ার সৈনিক এক হও,’আওয়ামী লীগ মার্কা বিএনপির দালালরা হুশিয়ার সাবধান’।

গত ২০২১ সালের ৮ অক্টোবর (শুকবার) নুরুল আলম সিকদার কোম্পানীগঞ্জ উপজেলা বিএনপির আহ্বায়ক ও মাহমুদুল হাসান রিপন সদস্য সচিব। এ দু’জনের নেতৃত্বে ৭২সদস্যের আহ্বায়ক কমিটি গঠন করে জেলা বিএনপি। কমিটিকে ৯০ দিনের মধ্যে কাউন্সিলের মাধ্যমে ইউনিয়ন কমিটি গঠনের নির্দেশ দেওয়া হয়। এ কমিটির বিরুদ্ধে তখনও সাথে সাথে ঝাড়ু মিছিল করেছিলেন বিএনপি নেতাকর্মীরা। তারা এখন পর্যন্ত মেয়াদোত্তীর্ণ আহবায়ক কমিটির পদ নিয়ে বসে আছেন।

বিএনপি নেতাদের অভিযোগ, ২৮ মাস পর মেয়াদোত্তীর্ণ আহ্বায়ক কমিটি গত শুক্রবার (২৮ জুন) নুরুল আলম সিকাদের মুছাপুরের বাড়িতে কাউন্সিল ছাড়া নিজেদের লোক দিয়ে আট ইউনিয়নের পকেট কমিটি গঠন করে। এতে দীর্ঘদিন বিদেশে অবস্থান করা এবং এলাকার বাইরে থাকা এমনকি আওয়ামী লীগের রাজনীতির সঙ্গে গা ভাসানো লোকজনকে কমিটিতে স্থান দেওয়া হয়েছে। এ কমিটি বাতিল করে কাউন্সিলের মাধ্যমে কর্মীবান্ধব লোকদের পদে স্থান করে দেয়ার দাবীতে চরহাজারী ইউনিয়ন ও চরপার্বতী ইউনিয়ন সহ বিভিন্ন ইউনিয়নে বিক্ষোভ মিছিল ও সভা সমাবেশ অব্যাহত রেখেছে।

প্রতিবাদ সমাবেশে বিএনপি নেতা গাজী মো. আলমগীরের নেতৃত্বে আব্দুল মজিদ মেম্বার, হারুন অর রশীদ ভূঞা, আবু তাহের, মো. সফি উল্যাহ (মন্ত্রী সফি), নূরুল হুদা বাচ্চু, সেলিম মাহমুদ, জয়নাল আবেদীন, মোর্শেদ আলম, আব্দুল হক হকসাব, কামাল উদ্দীন, আব্দুর রহীম, আবদুল মতিন, রবিউল আলম ও সেলিম ড্রাইভার প্রমুখ বক্তব্য রাখেন। অপর দিকে চর পার্বতী ইউনিয়নে মিলন মেম্বারের নেতৃত্বে উপজেলা আহবায়ক কমিটির বিরুদ্ধে একটি ঝাড়ু মিছিল বের করেন।

এতিকে বিএনপি নেতা হারুন অর রশীদ ভূঞা বলেন, নেতারা টাকার বিনিময়ে নিষ্ক্রিয় লোকদের দিয়ে বিএনপির কমিটি করেছেন। এজন্য উপজেলা বিএনপির শিকদার-রিপন দায়ী। এ দু’জনের টাকার লোভের কারণে ব্যারিস্টার মওদুদ আহমদের মতো সিনিয়র নেতার এলাকা, এক সময়ের বিএনপির দূর্গ আজ সাংগঠনিক অবস্থা নিস্ক্রিয়তা দেখা দিয়েছে।

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, পদ পাওয়া সিরাজপুর ইউনিয়ন বিএনপির সভাপতি মাইন উদ্দিন মাসুম চট্টগ্রামে ব্যবসা করেন প্রায় সময়ে এলাকার বাহিরে থাকেন । চরপার্বতী ইউনিয়নের সভাপতি রুপপুর বিদ্যুৎ কেন্দ্রে চাকরি করেন। চরহাজারী ইউনিয়ন সভাপতি নুরনবী বাবুল ঢাকায় ব্যবসা করেন মাঝে মধ্যে দলিল রেজিষ্ট্রি করার গ্রাহক পেলে এলাকায় আসেন। চরকাঁকড়া ইউনিয়নের সাধারণ সম্পাদক বেলায়েত হোসেন উপজেলা নির্বাচনে আওয়ামী লীগ প্রার্থীর সক্রিয় কর্মী ছিলেন।

চরফকিরা ইউনিয়নের সভাপতি গোলাম রাব্বানী বিপ্লব উপজেলা নির্বাচনে আওয়ামী লীগ নেতা মিজানুর রহমান বাদলের পক্ষে সক্রিয় ছিলেন। তার পক্ষে কাজ করে কবি জসিম উদ্দিন উচ্চ বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটির পরিচালক নির্বাচিত হন। রামপুর ইউনিয়নের সাধারণ সম্পাদক আলমাছ খান বাহাদুর সপরিবারে ঢাকায় থাকেন। এলাকায় কোন কাজ ছাড়া আসেন না। মাঝে মধ্যে এলাকায় দেখা যায়।

মুছাপুর ইউনিয়নের সাধারণ সম্পাদক মাইন উদ্দিন মাষ্টার (কিছুদিন আগে তিনি টুঙ্গিপাড়ায় বঙ্গবন্ধুর কবর জিয়ারত করে ফেসবুকে স্ট্যাটাস দিয়েছেন)। আওয়ামী লীগ নেতা কর্মীদের সাথে সখ্যতা রেখে তাদের সাথে এলাকায় লিয়াজু করে চলেন। সংগঠনিক সম্পাদক ইব্রাহিম মাঝি বালুর ব্যবসা করেন, নেই কোন তার একাডেমিক শিক্ষা, এবং সাংগঠনিক সম্পাদক পদের দায়িত্ব পালনে নেই কোন সাংগঠনিক ন্যূন্যতম যোগ্যতা।

এ ব্যাপারে আবদুল মজিদ মেম্বার (সাবেক) বলেন, কোম্পানীগঞ্জ উপজেলা বিএনপির আহবায়ক কমিটির মেয়াদোত্তীর্ণ হয়ে গেছে আরো ৩ বছর আগে। তারাতো এক্সপেয়ারডেট। তাদের মেয়াদ শেষে, কাজও শেষ,তারা কি করে কমিটি করে। তাদের কমটি আমরা মানিনা। শিগগিরই ত্যাগী, দলের দুঃসময়ে কারা নির্যাতিত নেতাদের সমন্বয়ে কমিটি গঠন করা এটি বিক্ষোভ কারীদের দাবী।

এ বিষয়ে জানতে উপজেলা বিএপির সদস্য সচিব মাহমুদুর রহমান রিপন কে বারবার কল দিলেও মোবাইল রিসিভ করেননি।

উপজেলা বিএনপির আহ্বায়ক নুরুল আলম সিকদার বলেন, বিএনপি একটি গণতান্ত্রিক রাজনৈতিক দল কাঙ্ক্ষিত পদ না পাওয়া ও পদ বঞ্চিতরা প্রতিবাদ করতেই পারে এটা স্বাভাবিক। মাঠ ছেড়ে কেন বাড়ীতে বসে এ কমিটি ঘোষণা করলেন এ প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, প্রশাসনের ডিস্টার্বের কারনে বাড়ীতে এ কমিটি ঘোষণা করা হয়।

অপর দিকে নোয়াখালী জেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক আ্যডভোকেট আব্দুর রহমান বলেন, ইউনিয়ন কমিটি ঘোষণা করার দায়িত্ব উপজেলা কমিটির তারা কমিটি দিতেই পারেন। মেয়াদোত্তীর্ণ উপজেলা কমিটি এই ইউনিয়ন কমিটি ঘোষণা করতে পারবেন কিনা এমন প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, এটি আমার নলেজে নেই। পরে কথা বলবেন বলে ফোন কেটে দেন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

Share post:

Subscribe

Popular

More like this
Related

নোয়াখালী জেলা ছাত্রদলের সাধারণ সম্পাদকসহ গ্রেপ্তার ৫

সদর (নোয়াখালী) সংবাদদাতা :: নোয়াখালী জেলা ছাত্রদলের সাধারণ সম্পাদক...

কোম্পানীগঞ্জে জাতীয় শিক্ষা সপ্তাহে শ্রেষ্ঠ হয়ে পুরস্কার পেলেন যারা

কোম্পানীগঞ্জ (নোয়াখালী) প্রতিনিধি :: জাতীয় শিক্ষা সপ্তাহ ২০২৪ উপলক্ষে...

কোম্পানীগঞ্জে বঙ্গবন্ধু ও বঙ্গমাতা গোল্ডকাপ ফুটবল টুর্নামেন্ট ফাইনাল খেলা অনুুষ্ঠিত

কোম্পানীগঞ্জ প্রতিনিধি :নোয়াখালীর কোম্পানীগঞ্জ উপজেলায় বঙ্গবন্ধু ও বঙ্গমাতা গোল্ডকাপ...

কোম্পানীগঞ্জে পরকীয়ার প্রতিবাদ করায় বর্বর স্বামীর নির্যাতনের শিকার স্ত্রী হামিদা

কোম্পানীগঞ্জ প্রতিনিধি :যৌতুক ও নারীলোভী স্বামীর নির্যাতনে নোয়াখালী সদর...